প্রবাসী লেখকদের কলাম

Displaying 1-20 of 459 results.
শহরের ও কি হয় নিরব রক্ত ক্ষরণ

শহরের ও কি হয় নিরব রক্ত ক্ষরণ

শহরের ও কি হয় নিরব রক্ত ক্ষরণ

জাহাঙ্গীর বাবু


যে শহর ঘন্টার পর ঘন্টা

জ্যামে থেমে থাকে!

সে শহর নাকি এগিয়ে যায়;

দুর্দান্ত গতিতে নিত্য নব উদ্যমে!

মিরাকল,মিরাকল হে প্রভু;

সত্য মিথ্যার সাথে

আমরাই আগুয়ান!

কষ্ট কি শুধু আমার!

নাকি এই শহরের ও হয় কি 

নিরব রক্ত ক্ষরণ!

এলো পাথাড়ি খোঁড়া খুড়ি;

আজ টেলিফোন কাল পানি!

ড্রেনেজ বন্ধ বিবেকের বর্জে

মেশিন চলে শহরের বুক,

......

অশুদ্ধ স্নান

অশুদ্ধ স্নান

অশুদ্ধ স্নান

জাহাঙ্গীর বাবু

হাজার কোটি লক্ষ কোটি 

লোপাট করে নেতা,মন্ত্রী,ধনী!

ধরা শায়ী কাভি কাবার 

ছিচকে ছেচ্চর চুনুপুটি!

লোক দেখানো ধর পাকড়ে

শুদ্ধ থাকার দিচ্ছেন প্রমাণ, 

অশুদ্ধ দূর্ণীতির সাগর জলে

দিবা রাত্রি চলছে স্নান!

বিশুদ্ধতার মূর্তপ্রতীক

ছদ্মবেশী লেবাসধারী হুকুম দাতা

রাজা,উজির,মন্ত্রী,সেপাই ; সাফাই 

গানে অশুদ্ধতার মদদদাতা!  

...

এখনই বন্ধ করনা আাঁখি

এখনই বন্ধ করনা আাঁখি

এখনই বন্ধ করনা আাঁখি

--------ফজলুল কাদির পান্না


(নুসরাত জাহান রাফির মৃত্যুশয্যার পার্শ্বে বসে

তাঁর পিতার জবানীতে লেখা এই কবিতা)


মারে এখনই বন্ধ করনা আঁখি,

তোমার যে অনেক কাজ রয়ে গেছে বাকী।

প্রতিবাদের তীব্র ঝড় তুলে রক্ত জমাট

বিদ্রোহী দুটি চোখ বন্ধ করার সময় নয় এখন।

যমদূত যদি আসে, তাকে দুঃসাহসে বলে দাও

ফিরে যাও তুমি ফিরে যাও

জাননা সত্যকে ভালবেসে নতুন প্রভাতে

জাগে যে প্রাণ, প্রতিবাদে......

মা....

মা....

মা.... 

জাহাঙ্গীর বাবু

মমতার কবিতার শিরোনাম মা।

ক্ষমার কবিতার শিরোনাম মা।

অনন্ত অসীম ভালোবাসার সমুদ্র মা,

মা ধৈর্য্যের অসীম কবিতা।

গর্ভযন্ত্রণা নয় মাস,ভুমিষ্ট যন্ত্রনা শেষে

কান্নার নোনা জলে,বুকের নহরে

তিল তিল করে জীবনের সাথে যুদ্ধ করে

মাটির দলা সম শিশু থেকে গড়ে তোলে  মানুষ। 

মা,শিক্ষক,চিকিৎসক,সেবক অতন্ত্র প্রহরী। 

মা,লাঞ্চনা,অপমান সয়ে অভুক্ত থেকেও

সন্তানের শুভকামনায় মা।

মা পুরো এক ভালোবাসার কাব্য গ্রন্থ।

যে টুকু অপারগতা তার জন্য

ক্ষমা চাই মা, ক্ষমা চাই।

মা,তোমার তুলনা শুধু তুমি।

মা তোমায় ভালোবাসি।

মা,একটা......

অন্তঃসার শুন্য

অন্তঃসার শুন্য

অন্তঃসার শুন্য

জাহাঙ্গীর বাবু


দুঃসময় দূর হবে কবে

কে জানে বলো!

সুসময় আসবে বলে

দুঃসময়ের সাথে সহবাস এখনো।

বিধাতার নিয়মের আছে ধারাপাত,

জানা কি আছে কারো?

প্রকৃতির নিশানায় দুর্ভাগা 

ভাগ্যের চাবি কোথায়,কে বলতে পারো?

সময়ের সাথে সময়ের জুয়া

জীবনের সাথে জীবনের,

উলটো পথে জীবন গাড়ি

জীবনের সাথে জীবনের আড়ি!

গন্তব্যহীন ছুটে চলা,উদ্দেশ্যহীন পথ চলা

যৌবনের ভূলের মাশুল পৌড়তায়

পৌড়তার মাশুল বার্ধ্যক্যে

অপেক্ষা, মৃত্যুর অপেক্ষা।

শুন্য আগমন,শুন্য প্রত্যাবর্তন 

সময়ের সাথে সময়ের পাশা খেলা!

বেহিসাবি জীবন কাব্য;

অন্তঃসার......

রমজানের পবিত্রতা  রক্ষা করি

রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করি

রমজানের পবিত্রতা  রক্ষা করি

জাহাঙ্গীর বাবু

রমজান ভোজন বিলাসের নয়

নাচ গানে মত্ততার নয়,রমজান ইবাদতের।

রমজান নামাজ আদায়ের,পবিত্র গ্রন্থ আল কোরআন তেলায়াতের, 

রমজান এশার নামাজের সাথে ওয়াজিব তারাবীর।

রমজান পবিত্রতার,রমজান ফেৎনার নয়

রমজান যাকাত ফেৎরা আদায়ের।

রমজান রহমত,মাগফেরাত,নাজাতের।

রমজান নিজেকে শুদ্ধ করার।

রমজান শুধু উপবাসের নয়,

প্রতিটি ইন্দ্রিয়ের গুনাহ থেকে মুক্তির।

রমজান আঘাতের নয়,প্রতিশোধের নয়

রমজান ক্ষমা করার,রমজান শান্তির।

রোজা,রমজান,সিয়াম সাধানার।

রমজান নেয়ামত মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের।

রমজান আখেরী......

শ্রমিকের কষ্টের রঙ এক

শ্রমিকের কষ্টের রঙ এক

শ্রমিকের কষ্টের রঙ এক 

জাহাঙ্গীর বাবু


মে দিবসে আজীবন দাবী, 

শুধু কাগজের প্রত্যায়ন পত্রে নয়

মেধা,প্রতিভা অনুযায়ী কাজ চাই,শ্রম চাই

শ্রমের বিনিময়ে মূল্য চাই,

মৌলিক অধিকার পূরণে ন্যায্য মুজুরী চাই।

বিদেশ,দেশে শ্রমিকের কষ্ট দেখেছি,দেখছি।

শ্রমিকের কষ্টের রঙ এক,অভিন্ন।

প্রবাস থেকে বলেছি,এবার স্বদেশ থেকে-

শ্রমিকের কথা বলছি,শ্রমের কথা বলছি।

শ্রমিকের দেশ নেই,বিদেশ নেই,

সীমান্ত নেই,গন্ডি নেই,শ্রমিক শোষিত সারা পৃথিবীতে।

কবিতা নয়,মে দিবসে অধিকারের দাবী নিয়ে এসেছি।

মে দিবসেও 

টুং টাং বাজে হাতুড়ির ঘন্টা

আজো আমার দেশের......

বাঁঁচাও স্বাধীনতাদেরকে!

বাঁঁচাও স্বাধীনতাদেরকে!

বাঁঁচাও স্বাধীনতাদেরকে!

জাহাঙ্গীর বাাবু  


আমি সতের কোটি স্বাধীনতার কথা বলছি-
প্রতিদিন, প্রতিরাত, প্রতিমুহুর্ত
হায়েনা,জানোয়ার, নরখাদকের হাতে,
স্বাধীনতারা মৃত্যু বরণ করে!
যেন প্রকৃতির নিয়ম ভেঙ্গে,অসময়ে প্রস্থান!
 
গাড়ির তলায় পিষ্ট হচ্ছে স্বাধীনতা
অনিরাপদ জনপদ,অনিরাপদ রাজপথ
স্বাধীনতাদের রক্তে লাল হয়;
থোকা থোকা রক্তে পিচ ঢালা পথ  বিবর্ণ
স্বাধীনতারা মিছিল করে মুক্তির!

মৌলিক অধিকারে, বেঁচে থাকার প্রয়াসে
স্বাধীনতারা করে মানব বন্ধন, করে অনশন!
স্বাধীনতারা  প্রতিবাদ করে নিরাপদে ঘরে ফেরার!
মুক্ত মানচিত্রের সীমানায়
স্বাধীনতারা হয়......

নিরাপদ সড়ক কি শুধুই স্বপ্ন!

নিরাপদ সড়ক কি শুধুই স্বপ্ন!

নিরাপদ সড়ক কি শুধুই স্বপ্ন!

জাহাঙ্গীর বাবু


আর কত প্রাণের অবাসানে ক্ষান্ত হবে
রাজপথ! আর কত জীবন নিয়ে শান্ত হবে
উত্তপ্ত ড্রাইভারের মগজ!
নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের দাবীতে
 যে নেমেছিলো রাজপথে,সেও চলে গেলো
পরপারে,ঘাতক বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে !

ইট পাথরের রাস্তায় পিচ নেই
আছে রক্ত আর শোকের অস্ত্রু জল;
ঘাতকেরা আর কতো রক্ত চাই তোদের, বলরে ওরে বল?

অপরিকল্পিত রাস্তা, রুগ্ন,ভগ্ন সিগনালিং
সিস্টেম,নিরুপায়,অসহায় সিগিন্যাল হাত
নাড়ে ট্রাফিক,অধৈর্য্য চালক পথচারী!

রাস্তার তথাকথিত যথেচ্ছা উন্নয়নে
খোড়াখুড়ি,রাস্তায় স্বেচ্ছাচারী পার্কিং,
যেখানে সেখানে......

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলায় শহীদদের স্মরণে - তোমরা শহীদ,তোমরা ইসলামের শহীদ

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলায় শহীদদের স্মরণে - তোমরা শহীদ,তোমরা ইসলামের শহীদ

তোমরা শহীদ,তোমরা ইসলামের শহীদ
জাহাঙ্গীর বাবু


ক্রাইস্টচার্চ শহর হলো কারবালা!
শান্ত নিউজিল্যান্ডের মসজিদ রক্তাক্ত!
আশান্ত ভয়ে তটস্থ নগরী !কি অপরাধ!
লাশের উপর লাশ,লাশের স্তুপ!
অন্ধাকার কালো দিন,লাশের মিছিল! কেন?

এতো ফিলিস্তিন নয়,সিরিয়া নয়,
নয় পাকিস্তান, ইরাক,ইরান,
নয় চায়নার বন্দী মুসলিমের শহর!
ইসলামের অগ্রযাত্রা রোধে গুপ্ত হামলা!
নিরাপরাধ মুসল্লী,কি অপরাধ তাদের!
মহান রব,আল্লাহ রাব্বুল আলামিন
 এ কি ঈমানের পরীক্ষা!
 মুসলমানদের রক্তে ভেজা মসজিদের মিম্বর,জায়নামাজ!
বিশ্ববিবেক, মানবতা আর কতো হবে পরাজিত!

আমরা মুসলমান বেহুশ দল,গোত্র মাঝহাবে!
......

শোকের শহীদ মিনার টু চকবাজার

শোকের শহীদ মিনার টু চকবাজার

শোকের শহীদ মিনার টু চকবাজার

জাহাঙ্গীর বাবু

উনিশশো বায়ান্নর একুশের ভাষা শহীদদের
 ফুল দিয়ে জানালাম শ্রদ্ধাঞ্জলী
ধোয়া,মোছা,আলোকসজ্জা,ফুল,তোড়া,মালা,ডালি,
সারা দেশে খরচ হয়েছে লক্ষ বা কোটি কোটি।
একুশেতেই চক বাজারের ক্ষতি যোগ করি।
ফুলের মিছিলে ছিলো কেউ,কেউ ছিলো
 লাশের মিছিলে,একেই বুঝি নিয়তি বলে"।

বাতাসে ধোঁয়া,ধোঁয়ায় লাশের গন্ধ
মা খুঁজছে সন্তানকে,সন্তান খুজছে বাবা,ভাইকে;
ভাই খুঁজছে বোন,বোনের বিয়ের বাজার করতে
 এসে ফেরা হয়নি ভাইয়ের,
সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী নামতে পারেনি,স্বামী নামেনি
চলে গেছে পরপারে।

জ্যান্ত মানুষ ছাই,নিজেকে জ্বলতে......

সোনালি কাবিনের কবি

সোনালি কাবিনের কবি

কবি আলমাহমুদ স্মরণে-

সোনালি কাবিনের কবি

জাহাঙ্গীর বাবু


ফিরে আর আসবেনা কবি আল মাহমুদ
খুঁজবেনা কেউ,মায়ের সোনার নোলক,
নিঃস্ব হাতে লিখবেনা কেউ
ভালোবাসার সোনালো কাবিন।

গ্রাম বাংলা প্রকৃতি আর নারী
ফুটেছে কবিতায়,সে কবি
আল মাহমুদ নিলেন বিদায়!
পুরো নাম-
মীর আব্দুস শুকুর আল মাহমুদ।
জন্ম এগার জুলাই উনিশত ছত্রিশ
মোড়াইল গ্রাম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া,
বাংলাদেশ।

বি,বাড়িয়া'র সন্তান চিরতরে নিলেন বিদায়
পনের ফেব্রুয়ারি দুহাজার উনিশ।
অবসান জিঘাংসার,সমাপ্তি যতবিদ্বেষ;
আর নয় প্রশ্ন,
কোন ধর্ম,কোন নীতির ছিলেন তিনি?
মরিয়া অমর আল মাহমুদ
সাংবাদিক,......

পালাতে পারি না

পালাতে পারি না

পালাতে পারি না


এবিএম সালেহ উদ্দীন



সে

আমাকে জড়িয়ে ধরে

লাজুক লতার মতো

চাইলেও

পারি না পালাতে ।

বার বার হেরে যাই

  ওর বিশ্বাসের কাছে ।

ওর চোখের পাতায়

জমে থাকে গাঢ় অভিমান

চাইলেও

পারি না লুকোতে

কেননা

---ওর

আয়ত চোখ চতুর্দিকে ঘোরে

চেয়ে থাকে নক্ষত্রের মতো

আমি চাইলেও

ভুলতে পারি না -

ওর চকিত হৃদয়

এঁটে থাকে চুম্বকের মতো ।

আমি চাইলেও

পারি না পালাতে

ওর নিষ্কন্টক ভালোবাসা

এঁটে থাকে চুম্বুকের মতো

হৃদয়ের পুষ্পকণা

নৃত্য করে রুপোলি আলোর ঝরনার মতো ।

মনের অজান্তেই হয়ে উঠি শিহরিত..
......

ভ্যালেন্টাইন এন্ড লিভ টু গেদার!

ভ্যালেন্টাইন এন্ড লিভ টু গেদার!

ভ্যালেন্টাইন এন্ড লিভ টু গেদার!

জাহাঙ্গীর বাবু

কি হবে আর ভাবিয়া
শ্রোতের বিপরীতে হাটিয়া
দ্বীন, দুনিয়া,আখেরাত ভাবে কে?
কি হবে পুনর্জীবন, শেষ বিচারে!

যা পাও নগদ,হাত পেতে নাও

বাকীর খাতা থাক শুন্য!
কাজ করে যাও,হোক যত জঘন্য
কবির যে কবিতা হয়না প্রকাশ
সত্য লিখলেই দুর্বল,লেখনী অতি নগন্য!

বিয়ে ছাড়া  প্রাপ্ত বয়স্ক নর-নারী
এক ঘরে,এক খাট, এক মশারী
ইহা নয় এখন আর ঠাট্টা মশকারী।
আমাদের দেশেও,শুদ্ধতা এক সাথে
আইন সিদ্ধ লিভ ইন টুগেদারে!
বললে কথা,আইনের বিরুদ্ধে
জেল,জরিমানা হতে পারে!
বিবেকের কি হবে?ধর্মের কি হবে !
কে ভাববে?কে ভাবে? ভেবে কি ক্ষেত হবে?
......

বসন্ত কামনা

বসন্ত কামনা

বসন্ত কামনা

জাহাঙ্গীর বাবু

বসন্তে বছরের প্রয়ান,নতুন শুরু প্রত্যাশায়,
 প্রকৃতির বিস্ময়, শান্ত, দুর্দান্ত, চমৎকার।
প্রকৃতি নবজাতক যেন,কলরব,কলতান
 কুয়াসার চাদর চিড়িয়া স্নিগ্ধ শিশির অম্লান।

ফাল্গুন- চৈত্রে রাজার বেশে আসে

নাম তার ঋতু রাজ বসন্ত।
বসন্ত নিয়ে আসে সবুজের
সমারোহ,কৃষ্ণ চুড়ার লালে লাল প্রকৃতি,
ফাগুনের আগুন বসন্তের বাতাসে।

মৌ মৌ ফুলের সুবাস ভাসে চারিপাশে,
কোকিল পাপিয়া গান গায় আপন সুরে
কোকিল ডাকে সব পাখিদের ছাড়িয়ে,
কুহু কুহু কলরবে,হালকা শীতের আমেজে।

শীতল পরশ দখিনা বাতাসে,
মিলনের সুর মানুষ আর প্রকৃতির মনে।
প্রেম......

বাংলা ভাষার গান

বাংলা ভাষার গান

বাংলা ভাষার গান
নাজমুল ইসলাম মকবুল 

বাংলা আমার মায়রে ভাষা
বাংলা আমার প্রাণরে ভাষা
বাংলায় আমি কাব্য লিখি 
বাংলাতে গাই গান।
বাংলা আমার হৃদয় মন
আর
বাংলা আমার প্রাণ।।
বাংলার জন্য রক্ত দলিো
বায়ান্নতে
সালাম বরকত রফকিরো

রাজপথে বুকপতেে
বাঙ্গালীরাই দতিে পারে
ভাষার জন্য জান।।
বাংলা ভাষায় কথা বলে
র্গব করি
মুখরে ভাষা কমেনে নবিে
হরণ করি
ইউনস্কেোর ওই স্বীকৃতি ভাই
থাকবে যে অম্লান।।
 

...

সৈয়দ আশরাফ স্মরণে  :  অসাধারণ এক ব্যাক্তিত্ব

সৈয়দ আশরাফ স্মরণে : অসাধারণ এক ব্যাক্তিত্ব

অসাধারণ এক ব্যাক্তিত্ব

জাহাঙ্গীর বাবু

বেয়াদব সময়ে আদবের মশাল,
অসাধারণ এক ব্যাক্তিত্ব
তিনি সৈয়দ আশরাফ
ছিলেন অনন্য অসাধারণ।

সাঃ সম্পাদকের কথার বচন ভঙ্গী,
পর্দার উপস্থিতি,মিডিয়ায় কথা বলা,
রাজনৈতিক ভাষণ।
আরোতো আছে সাঃসম্পাদক এ দেশে,
তিনি ছিলেন ব্যাতিক্রমী একজন।

কিন্তু আমার দেখা  ভিন্ন একজন
বেয়াদব সময়ে আদবের মশাল,
তিনি সৈয়দ আশরাফ
ছিলেন অনন্য অসাধারণ।

করো স্মরণ হে বাংলাদেশ।
সৈয়দ আশরাফ আর নেই।
ভাবতে কষ্ট লাগে,অস্বচ্ছতার
ঘোলা কুয়াসার যৌবণে,স্বচ্ছতার
আলোক রশ্মিতে ফিরে গেলেন।
চিরন্তন বাস্তবতার গন্তব্যে।
সৃষ্টি কর্তার......

ফানুসের আলোয় রক্তাক্ত অবয়ব

ফানুসের আলোয় রক্তাক্ত অবয়ব

ফানুসের আলোয় রক্তাক্ত অবয়ব


জাহাঙ্গীর বাবু


হে নতুন বছর,ন্যায় প্রতিষ্ঠায় অন্যায়,
অন্যায়ের ক্রমধারায় অন্যায়;
ন্যায় নীতির কাগুজে কথামালা
লাউড স্পীকারের ইকুতে
 ভাইব্রেশনে উচ্চাভিলাস!

স্বপ্নের স্বপ্নীল স্বপ্ন এলোমেলো
বিনিদ্র রজনীর নিদ্রাহীন কষ্ট,
অট্টহাসিতে হৃদয়ে গোপন রক্তক্ষরণ!
মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে চায় অনিয়মের
শরীর,ধারাহিক নিয়মের আচ্ছাদনে।

পরিত্যাক্ত কিছু শব্দ কোন ঠাসা,
ভালোবাসা অভিসারে দুর্নাম!ভালো লাগার
 আলতো পরশে কীটনাশক দুষিত!
কল্পলোকে শিল্পিত ভাবনা!নিজেকে সত্যের
আলোয় উদ্ভাসিত করি। মিথ্যা পাহাড়ের
......

বিজয় দিবসে শান্তিময় মাতৃভুমি চাই

বিজয় দিবসে শান্তিময় মাতৃভুমি চাই

বিজয় দিবসে শান্তিময় মাতৃভুমি চাই

জাহাঙ্গীর বাবু

এবারের বিজয় দিবসের চাওয়া
শান্তিময় মাতৃভুমি,প্রিয় স্বদেশ,বাংলাদেশ।
চেতনার ককটেল মিল্কশেক গিলে আর কি লাভ?
 চেতনার বাজার এখন রমরমা।
বানিজ্য, চেতনার বানিজ্য।
চেতনার প্রকারভেদ,রকম ফের
পানির ন্যায়,বায়ুর মত!

দিবস এলেই শিক্ষালয়,মিডিয়া
বেশ গা ঝাড়া দিয়ে জেগে উঠে।
হ্যালো হ্যালো মাইক্রোফোন টেষ্টিং,
সাউন্ডবক্স বুঝি ফেটেই গেলো।
ক্যামরা পেলে কেঁদেই ফেলে আবেগে।

কতজনতো একুশে ফেব্রুয়ারী স্বাধীনতা দিবস!
ছাব্বিশে মার্চ শহীদ দিবস! বলে বেড়ায়,
বিজয় দিবসে গালে বুকে পিঠে
জাতীয় পতাকা আঁকে আল্পনার তুলিতে।
......

সময় আছে,একহও মুসলিম

সময় আছে,একহও মুসলিম

সময় আছে,একহও মুসলিম

জাহাঙ্গীর বাবু

মুসলিম মারে মুসলিম,
অন্য ধর্মের লোক পায় আস্কারা,
মুসলিমের শত্রু মুসলিম ওরে,
ভাইয়ের রক্তের খাসারা!

বিশ্ব মুসলিম ভাই ভাই
কোন মুর্খে কয়
ইসলাম ধ্বংসের এজেন্ট ওরা
মুসলিম নয় তারা

রক্ত ঝরায় ভাইয়ের শরীরের
খুন করে মুসলিম হয়ে মুসলিম!
বাবর আলীর ঘৃনা তোদের তরে
খুন ঝরানো খুনী তোরা,
 একদম মোনাফেক!

অন্ধ তোরা, জিহাদী,জঙ্গী
কত খুনী নাম,
এক আল্লাহর বিশ্বাসী
মুহাম্মদ আল্লাহর শেষ নবী
করেছি আমি কবুল।

এক আলেম,অন্য আলেমের দুশমন
নেই কেন একাত্ব আর এক তত্ববাদ
ফারাক কি রইলো
 জুলুমবাজ জালিমের সাথে
রক্ত ঝরানোই......

সর্বাধিক পঠিত