আলবার্টা পার্লাম্যান্টে বাংলা নববর্ষের স্বীকৃতির ধারাবাহিকতায় কিশোর ও যুব পুরস্কার ১৪২৫ ঘোষনা

March 31, 2019, 1:23 PM, Hits: 1515

আলবার্টা পার্লাম্যান্টে বাংলা নববর্ষের স্বীকৃতির ধারাবাহিকতায় কিশোর ও যুব পুরস্কার ১৪২৫  ঘোষনা

এস হাসান, হ-বাংলা নিউজ, আলবার্টা, কানাডা থেকে : প্রবাসী বাংলাদেশিদের সন্তান-সন্তুতি ও শিশু–কিশোরদের জন্য "নববর্ষ কিশোর ও যুব পুরস্কার ১৪২৬" প্রবর্তন করেছে বাংলাদেশ কানাডা হেরিটেজ সোসাইটি অব এডমন্টন । আলবার্টা পার্লাম্যান্টে ২০১৭ সালে বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দানের মধ্যদিয়ে বহুসংস্কৃতির দেশ কানাডায় বাংলাদেশকে অনন্য এক উচ্চতায় তুলে ধরতে শুরু হয়েছে নানাবিদ আয়োজন.

এডমন্টনে বসবাসরত বাংলাদেশ বংশোধ্বুত প্রতিটি তরুণ-তরুণীকে আমাদের সংস্কৃতি,আমাদের ইতিহাস, আমাদের মূল্যবোধ,আমাদের মুক্তিযুদ্ধ ও আমাদের দেশ-প্রেম এর কথা জানান দিতে এ নিরলস প্রচেষটা। বাংলাদেশে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন উপলক্ষে দেশে ও প্রবাসে, প্রধানতঃ বাংলাদেশ হাইকমিশনগুলোতে শিশু–কিশোরদের জন্য সমাবেশ, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা সহ নানাবিদ আয়োজন করা হয়েছে এবছর।  দৃশ্যতঃ জাতীয় শিশু দিবস উদযাপনকে রাজনীতির উর্দ্ধে রেখে একে সার্বজনীন করা যায়নি। কর্পোরেট সংস্কৃতি যার অভাব পূরনে ব্যর্থ।

"নববর্ষ কিশোর ও যুব পুরস্কার ১৪২৬" এর জন্য এবছর মনোনীত হয়েছেন: অনুশা মোহাম্মদ, নাভিদ মির্জা, মিয়া আনাফ রহমান, সাওউতি চৌধুরী, ইলতিফাত নাহিয়ান (অনন্যা), আনাস আইহাম, পিয়াল তালুকদার, ও  রৌদশী চৌধুরী, আকাশ দাস, নাফিসা মির্জা, কানিজ ফাতিমা, ইলতিজা নাহিয়ান (সূকর্না), আয়াত ইসলাম, রাহাত ভূঁইয়া, আফরাহ আনম হোসেন ও তানজিলা আলী প্রমূখ.বাংলাদেশ কানাডা হেরিটেজ সোসাইটি অব এডমন্টন এর  নতুন ও ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগটি স্পন্সর্ করবে ডাইভার্স এডমন্টন।

আলবার্টা পার্লাম্যান্টে ২০১৭ সালে বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দান ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দকে সংসদীয় সন্মাননা প্রদান প্রবাসে বাংলাদেশের জন্য বিরল মর্যাদার স্থান করে দিয়েছে। ৪, এপ্রিল ২০১৭ আলবার্টা পার্লাম্যান্টে নিউ ডেমোক্র্যাট ককাস এর সহযোগিতায় বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রাদেশিক পরিষদে একটি বিল উত্থাপিত হয়েছে। সণ্মানিত ডেনিস ওলার্ড, এমএলএ তা সংসদে উত্থাপন করেন। সংসদে বিপুল করতালির মাধ্যমে একে স্বাগত জানান সরকার ও বিরোধীদলীয় আইন প্রনেতাগণ।

মাননীয় স্পিকার রবার্ট ই ওয়ানার বাংলা নববর্ষকে নিয়ে হাউজের গভীর আগ্রহের কথা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে উল্লেখ করেন।

ডাইভার্স এডমন্টন সম্পাদক দেলোয়ার জাহিদের আহবানে সাড়া দিয়ে নিউ ডেমোক্র্যাট ককাস বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দেয়ার এ উদ্যোগ নিয়েছিলো। অধিবেশনের পূর্বে মাননীয় ইরফান সাবির কমিউনিটি এবং সমাজ সেবা মন্ত্রী উপস্থিত বাঙ্গালী নেতৃবৃন্দের সন্মানে একটি মধ্যান্যভোজ সভার আয়োজন করেন। 

বাংলাদেশ কানাডা হেরিটেজ সোসাইটি অব এডমন্টনের সভাপতি ম. লস্করের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শীতমেলা ও একুশে উদযাপন অনুষ্ঠানে আলবার্টার শ্রমমন্ত্রী ক্রষ্টিনা গ্রে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন  বাংলা নববর্ষকে স্বীকৃতি দিয়ে প্রাদেশিক পরিষদে বিল উত্থাপনকারী এমএলএ  ডেনিস ওলার্ড, ও প্রধান আলোচক বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কানাডা ইউনিট নির্বাহী ও ডাইভার্স এডমন্টনের সম্পাদক দেলোয়ার জাহিদ। আলোচনায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উঠে আসে বহুসংস্কৃতির মাঝে শিশু–কিশোরদের দ্বারা ও শিশু–কিশোরদের জন্য বাঙ্গালী সংস্কৃতিকে তুলে ধরা।

কিশোর ও যুবক-যুবতি যাদের এবছর সনদ ও পদক প্রাপ্তির জন্য মনোনয়ন দেয়া হয়েছে তাদের উল্লেখ করার মতো অবদানগুলো হলো ঃ পারফর্মিং আর্ট, শিল্পীর কণ্ঠস্বর, দেহ বা অলৌকিক শৈল্পিক অভিব্যক্তির প্রকাশ,সঙ্গীত, নাচ, শিক্ষা, সেবা ইত্যাদি।

এডমন্টনে ভিন্ন মাত্রার উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে অনুষ্ঠিতব্য বাংলা নববর্ষ উদযাপন, মঙ্গল শোভাযাত্রা ও বৈশাখী মেলা। ভাষা আন্দোলনের চেতনা, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, এবং প্রবাসী শিশুকিশোরদের  ভাষা ও সাংস্কৃতিক বিকাশে যত্নশীল হওয়ার প্রত্যয়ে এ পুরস্কার প্রবর্তন। বাছাই কমিটিতে ছিলেনঃ চামেলী লস্কর,ভিপি আহসান উল্লাহ , সাইফুর হাসান, ও জিয়ায়ুল ইসলাম।

 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ