শেখ হাসিনার বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি

September 27, 2018, 1:20 PM, Hits: 714

শেখ হাসিনার বক্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি

হ-বাংলা নিউজ : যুক্তরাষ্ট্র সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্ণিয়া শাখা। 

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির সভাপতি মো: আ: বাছিত ও সাধারণ সম্পাদক বদরুল চৌধুরী শিপলু স্বাক্ষরিত এক প্রেস বার্তায় বলা হয়, সমগ্র বাংলাদেশ আজ কারাগারে পরিণত- ; গণতন্ত্র, মানবাধিকার ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য সারা জীবন সংগ্রাম করে যাওয়া অগ্নি জননী, মাটি ও মানুষের নেত্রী, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপার্সন, আপোষহীন দেশনেত্রী ম্যাডাম খালেদা জিয়াকে অনতিবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে। নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচনের ব্যবস্হা করতে হবে। 

ক্ষমতা হারানোর ভয়ে প্রধানমন্ত্রী কান্ডজ্ঞানহীনশূন্য হয়ে পড়েছেন। তার সামনে, পেছনে, ডানে-বাঁয়ে যারা তাকে ঘিরে আছে তাদের দিকে তিনি তাকান না, শুধু তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষদের কুৎসা রটাতেই ব্যস্ত থাকছেন। ক্ষমতাসীন হওয়ার পরে কিম্ভূতকিমাকার একনায়কতন্ত্র কায়েম করার জন্যই তিনি বেহুঁশ হয়ে গণতন্ত্র ও নির্বাচন প্রক্রিয়া সন্ত্রাসের বেড়াজাল দিয়ে ঘিরে রাখতেই স্বৈরাচার হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর বিশ্বজোড়া নামডাক হয়েছে। তার মুখে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে বিষোদগার হাস্যকর। প্রধানমন্ত্রীর নিকট জাতি জানতে চায়- বিগত দশ বছরে ব্যাংক, বীমা লুটের টাকা গেল কোথায়? শেয়ার বাজার লুটের টাকা গেল কোথায়? ব্যাংকে আমানতকৃত টাকা চেক দিয়ে মানুষ না পেয়ে ফেরত আসে কেন? বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরি করেছে কে? এখনও কেন রিজার্ভ চুরির তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়নি? আর্থিক খাত ধ্বংস করলো কে? কানাডাতে বেগম পল্লী ও মালয়েশিয়ায় সেকেন্ড হোম তৈরি করেছে কারা? গত দশ বছরে বিদেশে লাখ লাখ কোটি টাকা পাচার করেছে কারা? প্রায় প্রতিদিন গড়ে ৪/৫ জন নিরীহ মানুষ বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ডের শিকার হচ্ছে কার নির্দেশে? ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলম, হুমায়ুন কবির পারভেজ, সাইফুল ইসলাম হিরু, সুমন ও জাকিরসহ বিএনপির অসংখ্য নেতাকর্মীকে গুম করেছে কে? কালো কাঁচঢাকা মাইক্রোবাসগুলো কাদের? উপজেলা চেয়ারম্যান নুর হোসেন বাবুকে প্রকাশ্য দিবালোকে যারা হত্যা করেছে তাদেরকে তো আপনি নিশ্চয়ই চেনেন, কার নির্দেশে তাদের বিচার হলো না! মাফ পেয়ে গেলো? যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা বিএনপির সভাপতি নাজমুলকে ক্রসফায়ারে হত্যাসহ বিএনপির হাজার হাজার নেতাকর্মীকে হত্যা করেছে কে? সর্বোপরি দেশের সাবেক প্রধান বিচারপতিকে বন্দুকের নলের মুখে দেশ থেকে বিতাড়নের নির্দেশ দিয়েছে কে? বর্তমানে দেশজুড়ে গুম, খুন, বিচার বহির্ভূত হত্যা ও লুটপাটের যে মহোৎসব চলছে, প্রধানমন্ত্রী তার অসত্য ও মিথ্যা ভাষণে তা ধামাচাপা দিতে পারবেন না। জনগণকে বোকা ভাববেন না।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির বিবৃতিতে আরও বলা হয়, জনগণ জানে কারা সন্ত্রাস করে, আওয়ামী লীগ নেতাদের বক্তব্য দেখে সেটি বোঝা যায়। বিএনপির সমাবেশ প্রতিহত করতে আওয়ামী লীগের মন্ত্রী, নেতাদের বক্তব্যই সেটা পরিষ্কার করেছে। কারা লগি-বইঠা দিয়ে ‘২৭’ তরুণকে হত্যা করেছিল? দেশে এখন আবারো সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরি করেছে আওয়ামী লীগ। ক্ষমতাসীন দলের নেতা নাসিম সাহেব বলেছেন অলিতে-গলিতে বিএনপির নেতা-কর্মীদের আটকে দিতে। আর নানক সাহেব বলেছেন হাত-পা ভেঙে দিতে। এ–ই হচ্ছে তাঁদের গণতন্ত্রের ভাষা। এর মাধ্যমে বোঝা যায়, কারা শুরুতে সংঘাত সৃষ্টি করে, সংঘাতকে উসকে দিতে চায়।

দেশ্যব্যাপী বিএনপি নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মামলা দেওয়া হচ্ছে অভিযোগ করে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির বিবৃতিতে বলা হয়, ১ সেপ্টেম্বর থেকে শুধু নামেই মামলা হয়েছে সোয়া তিন লাখের বেশি। মূলত নির্বাচনকে সামনে রেখে এসব মামলা হচ্ছে। অথচ সরকারপ্রধান দেশে এমনকি বিদেশে গিয়েও বলেছেন, তিনি একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেখতে চান। খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখা, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলায় সাজা দেওয়ার ‘চক্রান্ত’ আর এসব গায়েবি মামলা হচ্ছে সেই অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের নমুনা!

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির নেতৃবৃন্দরা বলেছেন, ২১ আগস্ট হামলার মামলার রায়কে কেন্দ্র করে পত্রপত্রিকায় বিভিন্ন রকম কথাবার্তা আসছে। এই মামলা সম্পূর্ণভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে করা হয়েছে। রাজনৈতিক কারণে আমাদের দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও দলের জ্যেষ্ঠ কয়েকজন নেতাকে এখানে জড়িত করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ‘মিথ্যা’ অভিযোগ এনে সাজা দেওয়ার হীন প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। কিন্তু এই ধরনের চক্রান্ত বাংলাদেশের মানুষ কখনো মেনে নেয়নি, নেবেও না। ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি আবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদানেরও দাবি জানায়। সরকারের উদ্দেশ্যে বলা হয়, দেশের জনগণকে শন্তি দিন, প্রতিহিংসার রাজনীতি বন্ধ করুন। দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। সভা-সমাবেশ করার অনুমতি দিতে হবে। ইসি সংস্কারসহ লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরী করতে হবে। জনমনের ভীতি দূর করতে হবে।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র নিন্দা বার্তায় স্বাক্ষর করেছেনঃ মোঃ আঃ বাছিত, বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু, সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন দিলির, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, খন্দকার আলম, আবুল ইব্রাহিম, মুর্শেদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান শাহীন, সালাম দাঁড়িয়া, মানিক চৌধুরী, মাতাব আহমদ, আব্দুল হাকিম, মিশর নুন, আবু তাহের সাজু, এ আর মাহবুবুল হক, মুরাদ হামিদ খান সানী, সাইদ আবেদ নিপু, ফারুক সরকার, খন্দকার তসলিম, মোঃ সামছুল ইসলাম, জহিরুল কবির হেলাল, মোঃ শাহজাহান, হাসানুজ্জামান মিজান, বাদল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, শাহীন হক, শাহতাব কবির ভূঁইয়া শান্ত, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন আহমেদ, রেজাউল হায়দার চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মিজানুর রহমান, খসরু রানা, শাহানুর কবির ভুঁইয়া শুভ্র, আজমউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, সুমেন আহমেদ, রেজাউল করিম জামিল, জুয়েল আহমেদ, কামরুল হাসান তরুন, মিকায়েল খান রাসেল, খায়রুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, জাভেদ বখত্ , আবদুল মোতালেব, আলতাফ হোসেন, আহসান আহমেদ, মিল্টন খান, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, ফয়সল হোসেন সিদ্দিক, আমজাদ হোসেন, খোরশেদ আলম রতন, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, তারেক খান, রওনক সালাম, তাসনুভা বেগম, রুহুল আমিন বাবু, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, শাহেদ আহমেদ, সিদ্দিক আহমেদ, জুনেল আহমেদ, মোঃ গোলাম সারোয়ার হোসেন, ইলিয়াস শিকদার, আবুল বাশার, আবদুল আহাদ, আবদুল হাকিম, কামরুল আলম চৌধুরী, গিয়াস আহমদ, মজিবর রহমান, ফখরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মোঃ শামীম উদ্দিন, আবদুল মুনিম, আশিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবদুল হাসিব বাবুল, আবদুল কাদির, মাঈনুল আহমেদ, রিপন চৌধুরী, এড. নুরুল হক, জামিল আহমেদ, মোঃ রহমান রফিক, সফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মুকুল, আবদুল্লাহ আল ফরহাদ, এনাম চৌধুরী, মোঃ আলম খোকন, সৈয়দ আলী আক্তার, রফিকুল আলম চৌধুরি সহ আরো অনেকেই। 

 
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ