দেশে নিপীড়ন, বিদেশে মানবেতর জীবন

September 13, 2018, 1:00 PM, Hits: 1701

দেশে নিপীড়ন, বিদেশে মানবেতর জীবন

হ-বংলা নিউজ, হলিউড থেকে : নাম রেজাউল করিম জামিল তিনি বর্তমানে লস এঞ্জেলেসে বসবাস করছেন। বাংলাদেশ থেকে ২০১৪ সালের শুরুর দিকে লস এঞ্জেলেসে আসেন। দেশে থাকতে তিনি বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দল ও বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের ঘোষক শহীদ রাষ্ট্রপতি বীর উত্তমের হাতে গড়া রাজনৈতিক সংগঠন ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের’ একজন কর্মী হিসেবে যোগদান করেন। তারপর ২০১০ সালেই ১ নং আলীনগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তারপর থেকেই উনার প্রতি শুরু হয় রাজনৈতিক প্রতিহিংসা।

দেশে আওয়ামীলীগ আসে এবং তখন থেকেই শুরু হয় এক ভয়াবহ শাসন ব্যবস্থা। সরকারি দলের লোকজন বেপরোয়া হয়ে ওঠে এবং শুরু করে ঘুম ও খুনের রাজনীতি। সে সময় ২০১২ সালে ঘুম হোন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী যার খবর আজ পর্যন্ত মিলেনি! তার পরেই ছাত্রদলের নেতা ইফতেখার আহমেদ দিনার সহ অনেকেই ঘুম হয় যাদের খবর আজ অবধিও পাওয়া যায়নি।  

এ সরকার আসার পর থেকেই ত্রাসের রাজনীতি শুরু করে এবং বিরোধী শক্তি ও মতবাদকে নির্মূল করতে তারা সব চেষ্টা করেছে এবং করে যাচ্ছে। এবং কয়েকবার রেজাউল করিম জামিলকে আওয়ামী গুন্ডারা মারতে আসে এবং বিভিন্নভাবে ঘুম ও খুনের হুমকি দিয়েছে। আর এসব থেকেই রক্ষা পেতে, এবং নিজের জীবন বাঁচবে না বুঝতে পেরে মা-বাবার উপদেশে সাড়ে আট হাজার মাইল দুরে পরিবার ছেড়ে একা জীবন কাটাচ্ছেন। এরকম ঘটনা চারিদিকে দৃশ্যমান। সবাই জীবন আতঙ্কে আছে। 

শুধু জোর করে ক্ষমতায় ঠিকে থাকতে এবং বহির্বিশ্বকে নিজেদেরকে একটি গণতান্ত্রিক দল হিসেবে বুঝাতে এবং তার পাশাপাশি আন্তর্জাতিকভাবে বিএনপিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে পরিচিত করতে বর্তমান সরকার কম করেনি যদিও তাদের মধ্যে গণতন্ত্রের লেশই নেই। তাদের অগণতান্ত্রিক ও ঘুম খুনের রাজনীতি থেকে কেউই রেহাই পাচ্ছেনা। তারা অবৈধ ভাবে ক্ষমতায় আসার পর রাষ্ট্রীয় শক্তি ও দলীয় সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে গণহত্যা, গুম, খুন করে হাজারো পরিবারে শোকের পাহাড় চাপিয়ে দিয়েছে। শেয়ারবাজার, পদ্মাসেতু, কুইকরেন্টাল, ডেসটিনি, হলমার্কসহ বিভিন্ন খাতে অকল্পনিয় লুটপাট চালিয়ে লাখো পরিবারে হাহাকার লাগিয়ে দিয়েছে। আইন-আদালতকে দলীয় প্রতিষ্ঠানের মত ব্যবহার করে কোটি জনতার প্রিয় নেতৃবৃন্দকে হত্যার ষড়যন্ত্র ও অবিচার করে ন্যায় বিচারকে পরবাসে পাঠিয়ে দিয়েছে। সবকিছুর পর বিশ্বের মানুষ তাদের এই নোংরা রাজনীতি এখন বুঝতে পেরেছে এবং এখন সবাই চায় বাংলাদেশে একটি অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক নিরপেক্ষ নির্বাচন হোক এবং দেশে ফিরে আসুক ভোটের গণতন্ত্র। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ