অটোয়ার মেয়রের সকল মাতৃভাষাকে স্বীকৃতি প্রদান

February 1, 2018, 6:58 AM, Hits: 657

অটোয়ার মেয়রের সকল মাতৃভাষাকে স্বীকৃতি প্রদান

হ-বাংলা নিউজ :  সকল মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষা ও সংরক্ষণের দাবিতে কানাডার রাজধানী অটোয়ায় অ্যাডভোকেসি কার্যক্রম শুরু করেছিল বাংলাদেশি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বাংলা ক্যারাভান ও প্রো-অ্যাকটিভ এডুকেশন ফর অল চিলড্রেন এনরিচমেন্ট। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট সকল প্রতিষ্ঠান ও মেয়রের কাছে বেশ কয়েকটি দাবি জানায় সংগঠনটি দুটি। উত্থাপিত দাবিগুলোর মধ্যে ছিল সংশ্লিষ্ট সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বাৎসরিক কার্যতালিকায় দিবসটি সংযুক্ত করা, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্‌যাপনের লক্ষ্যে শহরে শহরে স্মৃতিসৌধ স্থাপন, আইনি স্বীকৃতি প্রদান ও সকল মাতৃভাষা সংরক্ষণের লক্ষ্যে সব গ্রন্থাগারে আইএমএলডি কর্নার প্রতিষ্ঠা করাসহ কার্যকর কর্মসূচি হাতে নেওয়া।

প্রক্লেমেশনপ্রক্লেমেশন

এই দাবির প্রেক্ষিতে সম্প্রতি (১৫ নভেম্বর ২০১৭) অটোয়ার সিটি মেয়র জিম ওয়াটসন আনুষ্ঠানিকভাবে এ বিষয়ে প্রোক্লেমেশন জারি ও ঘোষণা দিয়েছেন। এ ছাড়া গত ১ নভেম্বর (২০১৭) কানাডার সিনেটে সিনেটর মবিনা জাফর একটি পাবলিক বিল উত্থাপন করেছেন। বিলটি এখন আইন হিসেবে হাতে পাওয়ার অপেক্ষা মাত্র।

প্রোক্লেমশন হাতে বাংলা ক্যারাভানের সদস্যরাপ্রোক্লেমশন হাতে বাংলা ক্যারাভানের সদস্যরা

অটোয়ার সিটি মেয়র জিম ওয়াটসন কর্তৃক সকল মাতৃভাষাকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি প্রদান অনুষ্ঠানে কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মিজানুর রহমান, ইউনেসকোর কর্মকর্তা সেবাসটিন, অটোয়া স্কুল বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মারিয়ান কায়েদ, পিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মঞ্জুর চৌধুরীসহ হারুনুর রশিদ, ড. পি কে বড়ুয়া, অমিতাভ স্যানাল, ড. নুরুল হক, আনোয়ার খান, ফারুক হোসেইন, মমতা দত্ত, গুলজাহান রুমি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।এই অনুষ্ঠানের শুরুতে কানাডার জাতীয় সংগীত পরিবেশন করে বাংলা ক্যারাভানের খুদে শিল্পীরা। এ ছাড়া ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো’ গানটি পরিবেশন করেন অং সুয়ে থোয়াই ও অটোয়ার স্থানীয় বাঙালি শিল্পীরা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করে নওরিন হক ও অদিব বখত।

প্রোক্লেমশন হাতে বাংলা ক্যারাভানের সদস্যরাপ্রোক্লেমশন হাতে বাংলা ক্যারাভানের সদস্যরা

মেয়রের ঘোষণার পর অ্যাডভোকেসি কার্যক্রমের উদ্যোক্তারা বলেন, সিটি অব অটোয়ার মেয়র কর্তৃক ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা অটোয়াবাসী বাঙালিদের জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। মোহরকৃত ঘোষণাপত্রটি হাতে নিয়ে বাংলা ক্যারাভানের কর্মকর্তারা, মেয়র জিম ওয়াটসন ও বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজানুর রহমানসহ সকলেই হাসি মুখে হর্ষধ্বনি করেন।

শহীদ মিনারের প্রতিকৃতির সামনে অতিথিরাশহীদ মিনারের প্রতিকৃতির সামনে অতিথিরা

কানাডার রাজধানী অটোয়ায় এখন থেকে বাঙালির একুশের মূলধারায় আত্তীকরণের পথে প্রবাহিত হবে। জয়তু বাংলা ক্যারাভান! এই ঐতিহাসিক মুহূর্তটিকে ধরে রাখার জন্য বাংলা ক্যারাভান প্রকাশ করে একটি স্মারকপত্র ‘আমরা ভুবনগাঁয়ের বাঙালি’। অনুষ্ঠানে বাংলা ক্যারাভানের প্রথম একুশে প্রকাশনা মোড়ক উন্মোচন পর্বে সংগঠনের কর্মকর্তারা বলেন, এই সুন্দর ধরাধামে জাতিবৈচিত্র্য ও তাদের ভাষাবৈচিত্র্য নিয়ে মাতৃভাষার মহিমা কীর্তন করে বাংলা, ইংরেজি ও ফরাসি ভাষার যথাসম্ভব চুম্বক লেখায় বিপুলসংখ্যক লেখকের হরেক চিন্তার সমাবেশ ঘটিয়ে একখানা গ্রন্থ নির্মাণে আমাদের চেষ্টার অন্ত নাই। সিটি অব অটোয়ার এই মহান ঘোষণাকে উপর্যুপরি প্ররোচিত ও ত্বরান্বিত করার পেছনে বাংলা ক্যারাভান তার জন্মলগ্ন থেকেই বিরামহীন অনুঘটকের কাজ করে যাচ্ছে। অটোয়াসহ কানাডার অন্যান্য শহরে বসবাসরত বাংলা কমিউনিটির সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আজ আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি সম্ভব হয়েছে।

সাংস্কৃতিক পরিবেশনাসাংস্কৃতিক পরিবেশনা

অটোয়ার প্রত্যেক বাঙালি ও প্রত্যেক ভাষাগোষ্ঠীর মানুষের মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের সিটি অব অটোয়া কর্তৃক ঘোষণার প্রেক্ষিতে আনন্দযাত্রার বেদিতে বাঙালির প্রাণের অর্ঘ্য বিবেচিত হোক সবার কাছে। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ