লস এঞ্জেলেসে বিএনপি'র বিজয় দিবস উদ্‌যাপন

December 18, 2017, 9:38 PM, Hits: 906

লস এঞ্জেলেসে বিএনপি'র বিজয় দিবস উদ্‌যাপন

হ-বাংলা নিউজ, হলিউড থেকে: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল ক্যালিফোর্ণিয়া শাখার উদ্যোগে, যুক্তরাষ্ট্রের মেগাসিটি লস এঞ্জেলেসে প্রবাসী অধ্যুষিত 'লিটিল বাংলাদেশে' ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের ৪৭তম মহান বিজয় দিবস উদ্‌যাপন করা হয়েছে। গত ১৭ ডিসেম্বর রবিবার সন্ধ্যার এ অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের সদস্য, প্রবাসী কম্যুনিটির সিনিয়র ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, বিশিষ্ট নারী নেতৃবৃন্দ, মিডিয়া কর্মীবৃন্দ ও সাধারণ প্রবাসী ছাড়াও বিপুল সংখ্যক বিএনপি'র নেতা-কর্মী-সমর্থকেরা উপস্হিত ছিলেন। 

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সভাপতি জননেতা মোঃ আঃ বাছিত। সঞ্চালনায় ছিলেন ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী (শিপ্‌লু), তাকে সহযোগিতা করেন দলের অন্যতম যুগ্ম-সম্পাদক মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল। অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের ও আবদুল হান্নান, প্রবাসী কম্যুনিটির সিনিয়র লিডার বাফলা'র সাবেক সভাপতি মেজর এনামুল হামিদ (অব:), বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও নারী নেত্রী আঞ্জুমান আরা শিউলী প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের YouTube ভিডিও দেখুনঃ https://youtu.be/5AGoW0DpbhE

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সভাপতি মোঃ আঃ বাছিত বলেন, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে দেশের ও প্রবাসী সকল বাংলাদেশীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাই। আজকের এইদিনে আমরা গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি সেসব অকুতোভয় বীর শহীদদের কথা, যাঁদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা স্বাধীন স্বদেশভূমি পেয়েছি। আমরা স্বাধীনতা যুদ্ধের বীর শহীদদের রূহের মাগফিরাত কামনা করি। পরাধীনতার হাত থেকে দেশের বিজয় অর্জনে যেসব মা-বোন সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করেছেন, আমরা তাদের জানাই সশ্রদ্ধ সালাম।

অনুষ্ঠানে আগত অতিথি আলোচকবৃন্দ বলেন, ১৯৭১-এ আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি শত্রুমুক্ত হলেও চক্রান্তকারীদের চক্রান্ত আজও বিদ্যমান। আধিপত্যবাদী শক্তি আমাদের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে গ্রাস করে আমাদের একটি পদানত জাতিতে পরিণত করার অপপ্রয়াসে লিপ্ত। ওই অপশক্তির এদেশীয় দোসররা নানাবিধ চক্রান্তজাল রচনা করে আমাদের বহু ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা বিপন্ন করে চলেছে। ৫ জানুয়ারি ২০১৪-তে প্রহসনের একতরফা নির্বাচন করে জনমতকে তাচ্ছিল্য করা হয়েছে। এদেশে এখন মানুষের নাগরিক স্বাধীনতা নেই। 

এদেশের মানুষ এখন অধিকারহারা। এদেশে শাশ্বত গণতন্ত্র নিরুদ্দেশ করা হয়েছে। গণতন্ত্রহীন দেশে নিরঙ্কুশ ক্ষমতার দাপটে সর্বত্র হতাশা, ভয় আর নৈরাজ্যের অন্ধকার নেমে এসেছে। ক্ষমতা জবরদখলকারীরা জনগণের ওপর নৃশংস আক্রমণ চালিয়ে হত্যা করছে। বর্তমান পরিস্থিতি যেন ভয়ঙ্কর নৈরাজ্যময়। এই অশুভ শক্তির নীলনকশা বাস্তবায়নে রক্তপাতের ওপরই নির্ভর করা হচ্ছে। ওদের হাত থেকে প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং গণতন্ত্রকে বিপদমুক্ত করতে স্বাধীনতা যুদ্ধের চেতনায় বলীয়ান হয়ে আমাদের জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

অনুষ্ঠানের ছবি দেখুনঃ https://www.facebook.com/BNPcaliforniausa/posts/2041778106068672?ref=aymt_homepage_panel

দলের সাধারণ সম্পাদক বদরুল আলম চৌধুরী শিপ্‌লু বলেন, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ডাকে শুরু হওয়া স্বাধীনতা যুদ্ধ সে বছর ১৬ ডিসেম্বর পাকহানাদার বাহিনীকে পরাস্ত করে দেশের অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা বিজয়ী হয়। তাই ১৬ ডিসেম্বর আমাদের গর্বিত এবং মহিমান্বিত বিজয় দিবস। এদেশের দামাল ছেলেরা হানাদার বাহিনীকে পরাজিত করে ছিনিয়ে এনেছিল স্বাধীনতার সূর্য। আজকের এ মহান দিনে আমরা সেসব অকুতোভয় বীর সেনাদের সশ্রদ্ধ অভিবাদন জানাই।

সিনিয়র সহ-সভাপতি মুর্শেদুল ইসলাম বলেন, শোষণ-বঞ্চনামুক্ত একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার প্রত্যয় নিয়েই ১৯৭১-এ এদেশের মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নিয়েছিল। স্বাধীনতার পর বিভিন্ন সময় আমাদের গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা বাধাগ্রস্ত হয়েছে, জনগণের মৌলিক ও মানবিক অধিকার খর্ব হয়েছে। কিন্তু প্রতিবারই এদেশের গণতন্ত্রপ্রিয় মানুষ লড়াই-সংগ্রামের মাধ্যমে গণতন্ত্র ও মৌলিক অধিকার পুনরুদ্ধার করেছে।

দলের সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান শাহীন বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ‘একদলীয় শাসন পাকাপোক্ত করতে’ সমস্ত গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো কেড়ে নিয়ে জনগণকে পদদলিত করতে চায়। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষকে কখনই পদদলিত করে রাখা যায়নি, তাদের কখনো দাবিয়ে রাখা যাবে না। এদেশের মানুষ অতীতে স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছে, এবারও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে।

ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপি'র সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ছাত্রনেতা মারুফ খান বলেন, আমরা সমৃদ্ধ স্বপ্নের বাংলাদেশ চাই, যেখানে গণতান্ত্রিক পরিবেশ থাকবে, সামাজিক নিরাপত্তা থাকবে, মানুষ তার মতপ্রকাশ করতে পারবে, সাংবাদিকরা মুক্তভাবে লিখতে পারবে-এই ধরনের মুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ চাই। বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং তারুণ্যের অহংকার তারেক রহমানের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে, এর বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে।

বিএনপি'র নেতৃবৃন্দ বলেন, একাত্তরে যে চেতনাকে অন্তরে ধারণ করে যে স্বপ্ন দেখে আমরা স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম, সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত হয়নি। আজকে ৪৭ বছর পরও আমাদের দুর্ভাগ্যের সঙ্গে বলতে হয়, গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করছে মানুষ। তারা খুন হয়ে যায়, গুম হয়ে যায়। আজকে শত শত গণতান্ত্রিক আন্দোলনের যোদ্ধাকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যিনি ৯ বছর গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন, তার বিরুদ্ধেও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে নির্বাসিত করা হয়েছে। হাজার হাজার নেতাকর্মী কারা অন্তরীণ। এই কারাগার থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। গণতন্ত্রকে মুক্ত করতে হবে। কারাগার ভাঙতে হবে।

বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ক্যালিফোর্ণিয়া বিএনপির নেতৃবৃন্দ:- মোঃ আঃ বাছিত,বদরুল আলম চৌধুরী শিপলু, সৈয়দ দেলোয়ার হোসেন দিলির, নজরুল ইসলাম চৌধুরী কাঞ্চন, খন্দকার আলম, আবুল ইব্রাহিম, মুর্শেদুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান শাহীন, সালাম দাঁড়িয়া, মানিক চৌধুরী, মাতাব আহমদ, আব্দুল হাকিম, মিশর নুন, আবু তাহের সাজু, এ আর মাহবুবুল হক, মুরাদ হামিদ খান সানী, সাইদ আবেদ নিপু, ফারুক সরকার, খন্দকার তসলিম, মোঃ সামছুল ইসলাম, জহিরুল কবির হেলাল, মোঃ শাহজাহান, হাসানুজ্জামান মিজান, বাদল, সৈয়দ নাসিরউদ্দিন জেবুল, মোয়াজ্জেম আহমেদ রাসেল, মারুফ খান, ইলিয়াস মিয়া, লায়েক আহমেদ, বদরুল আলম মাসুদ, শাহীন হক, শাহতাব কবির ভূঁইয়া শান্ত, নাঈমুল ইসলাম চৌধুরী, হোসেন আহমেদ,রেজাউল হায়দার চৌধুরী, হুমায়ুন কবির, মিজানুর রহমান, খসরু রানা, শাহানুর কবির ভুঁইয়া শুভ্র, আজমউদ্দিন চৌধুরী দুলাল, সুমেন আহমেদ, রেজাউল করিম জামিল, জুয়েল আহমেদ, কামরুল হাসান তরুন, মিকায়েল খান রাসেল, খায়রুল ইসলাম, তানভীর আহমেদ, জাভেদ বখত্ , আবদুল মোতালেব, আলতাফ হোসেন, আহসান আহমেদ, মিল্টন খান, ওমর ফারুক, কামাল হোসেন, ফয়সল হোসেন সিদ্দিক, আমজাদ হোসেন, খোরশেদ আলম রতন, জিল্লুর রহমান চৌধুরী, তারেক খান, রওনক সালাম, তাসনুভা বেগম, রুহুল আমিন বাবু, সাজ্জাদ পারভেজ, হেলাল মজুমদার, ইসলাম উদ্দিন, শাহেদ আহমেদ, সিদ্দিক আহমেদ, জুনেল আহমেদ, মোঃ গোলাম সারোয়ার হোসেন, ইলিয়াস শিকদার, আবুল বাশার, আবদুল আহাদ, আবদুল হাকিম, কামরুল আলম চৌধুরী, গিয়াস আহমদ, মজিবর রহমান, ফখরুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, মোঃ শামীম উদ্দিন, আবদুল মুনিম, আশিকুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আবদুল হাসিব বাবুল, আবদুল কাদির, মাঈনুল আহমেদ, রিপন চৌধুরী, এড. নুরুল হক, জামিল আহমেদ, মোঃ রহমান রফিক, সফিকুল ইসলাম পলাশ, আবুল কালাম আজাদ, মোঃ মুকুল, আবদুল্লাহ আল ফরহাদ, এনাম চৌধুরী, মোঃ আলম খোকন, সৈয়দ আলী আক্তার, রফিকুল আলম চৌধুরি প্রমুখ। 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ