ব্রাসেলসে ইবিএফ আয়োজিত আন্তর্জাতিক সেমিনার

July 18, 2017, 12:57 PM, Hits: 846

ব্রাসেলসে ইবিএফ আয়োজিত আন্তর্জাতিক সেমিনার

হ-বাংলা নিউজ:   লন্ডনঃ সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ প্রতিরোধ  প্রবাসী বাঙ্গালীদের এগিয়ে আসতে হবে। বিশ্বব্যাপী ধর্মের নামে উগ্রবাদীরা সন্ত্রাসকে ছড়িয়ে দিচ্ছে, কেউ যাতে উগ্রবাদ এবং সন্ত্রাসের দিকে ধাবিত না হয় সেলক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী সচেতনতা সৃষ্টির পাশাপাশি ঐক্য গড়ে তোলতে হবে। এটি একটি আন্তর্জাতিক সমস্যা,  বিশ্বের প্রতিটি দেশ এবং সমাজে উগ্রবাদ ঢুকে পড়েছে একক কোন দেশ বা গোষ্ঠীর পক্ষে তা প্রতিহত করা সম্ভব নয়। উগ্রবাদ মোকাবেলায় বিশ্ববাসীকে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে। গেল ১১ জুলই ব্রাসেলসে  ইউরোপীয়ান বাংলাদেশ ফোরাম (ইবিএফ) আয়োজিত আন্তর্জাতিক সেমিনারে বক্তারা এঅভিমত ব্যক্ত করেন। বক্তারা বলেন ধর্মকে পূজি করে বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসকে ছড়িয়ে দিচ্ছে উগ্রবাদীরা। এদের শেকড় কিন্তু এক জায়গায় এরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে  ভিন্ন ভিন্ন নামে সামাজিক রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সংগঠন ও সাহায্য সংস্থার ব্যানারে উগ্রবাদকে লালন করছে। বিশ্বব্যাপী কয়েকটি সংগঠন শিক্ষা এবং সেবার নামে নন ভায়ল্যান্স সন্ত্রাস করে যাচ্ছে। এদের সনাক্ত করতে বিশ্বব্যাপী সচেতনতার সৃষ্ঠি করতে হবে। প্রতিটি সচেতন নাগরিকের উচিত এদের কর্মকান্ড পর্যবেক্ষন করা।্ 

ইবিএফ এর আনসার আহমেদ উল্লার সভাপতিত্বে ব্রাসেলস প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এই সেমিনারে ‘‘ এগেনেষ্ট ভায়লেন্স এস্কট্রিমিজম এন্ড টেররিজম ইন ইউরোপ এন্ড বাংলাদেশ’’ শীর্ষক আলোচনায় অংশ নেন  ইউকে কনজারভেটিভ দলীয় মেম্বার অফ ইউরোপীয়ান পার্লামেন্ট জেফরী ভেন ওরডেন এমবিই এমইপি, ইতালীয়ান সোসাল ডেমক্রেট দলীয় ব্রানদো বেনিফি,  লেবার দলীয় সাবেক ডাচ এমপি এ্যামা আশান্তি সোসালিষ্ট পার্টির হ্যারী ভ্যান ভোমের্ল, সেমিনারে বাংলাদেশের স্যাকুলারিজম  কাউন্টার টেররিজম এবং ইসলামপন্থীদের উত্থান  প্রসঙ্গ নিয়ে আলোকপাত করেন বক্তারা। সেমিনারে সভাপতির ব্ক্তব্যে  আনসার আহমদ উল্লাহ সন্ত্রাস নির্মুলে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রশংসা করে বলেন, জঙ্গি দমনে বাংলাদেশ সরকার জিরো টলারেন্সে বিশ্বাসী  তিনি বাংলাদেশের ভয়ংকর সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারও  তাদের বিচারের সম্মুখীন করায় সরকারের প্রশংসা করেন। সেমিনারে বাংলাদেশের ধর্মনিরপেক্ষতা ও গণতন্তনের ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোকতাত করেন বক্তারা।

জাফরী ভ্যান অরডেন এমইপি বলেন সাউথ এশিয়ান দেশ গুলোতে উগ্রবাদীদের উত্থান ঘটেছে এবং ঘটছে, আর এর বিস্তৃতি ঘটছে এখন বৃটেন সহ সমগ্র ইউরোপ ব্যাপী, সন্ত্রাস নির্মুল করতে হলে বৃটেন সহ ইউরোপের দেশগুলোর সাউথ এশিয়ার দেশ গুলোর সাথে  সম্পর্ক আরো জোরদার এবং কাউন্টার টেররিজমকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। আর এ ব্যাপারে দেশগুলোর ফরেন এ্যাফেয়ার্সকে আরো তৎপর হওয়ার আহবান জানান। তিনি সম্প্রতি লন্ডন মানচেষ্টার সহ বিভিন্ন স্থানে সন্ত্রাসী হামলার বিবরন তুলে ধরে বলেন এর সাথে জড়িতদের বেশীর ভাগই সাউথ এশিয়ান বংশদ্ভোত ব্রিটিশ এবং কনভার্ট মুসলিম। এখান থেকে যাতে আ্র কেউ উগ্রবাদের দিকে ধাবিত না হয় এখনি পদক্ষেপ নিতে হবে।  কারা এখানকার মুসলিম তরুন তরুনীদের সিরিয়া ইরাক গিয়ে আইএস বাহিনীতে অংশ নিতে উৎসাহিত করছে, এরাতো এই বৃটেন এবং ইউরোপ থেকে কাজ করছে, তাদের শেকড় খুঁজে বের করতে হবে। এখানেই শেষ নয় বিশেষ করে বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং ভারত থেকে  আগত অভিবাসীদের তাদের সন্তানদের ব্যাপারে আরো সচেতন হতে হবে। 

সাবেক ডাচ এমপি আশান্তি বলেন বাংলাদেশী ডায়েসপারারা কমিউনিটি ইউরোপে ভিকটিম ডিসক্রিমিনেমন এবং তাদের পরিচিতি সংকটে ভোগছে, একটি গোষ্ঠী এদরের ধর্মের নামে একষ্টিমিজমের দিকে ধাবিত করছে। তিনি বলেন বৃটেন এবং ্ইউরোপে বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানের ইসলামপন্থী দলগুলোর শাখা রয়েছে ।

সেমিনারে বাংলাদেশে একের পর এক মুক্তমনা ও ব্লগারদের হত্যার জন্যে এসব ইসলামপন্থীদের ইঙ্গিত করে বলেন এ ব্যাপারে আমাদের আরো সচেতন হতে হবে। সেমিনারে বাংলাদেশের মুক্তমনা লেখক ব্লগার ও সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা যথেষ্ট নয়, বক্তারা  এবপারে বাংলাদেশ সরকারকে আরো বলিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়ার পাশাপাশি সেমিনারে মুক্তমনা লেখকদের হত্যার বিচার ও সুষ্টূ তদন্তের দাবী  জানান।   কীনোট স্পীকারের বক্তব্যে কনফ্লিক্ট ল এন্ড ডেভল্যপমেন্ট ষ্টাডিজের ডিরেক্টর  অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল আব্দুর রশিদ বলেন বাংলাদেশের  সাম্প্রদায়িক সম্পৃতি এবং সেকুল্যারিজমের বিরুদ্ধে উগ্রবাদীদের অপব্যাখ্যা দায়ী। তিনি বলেন ্এদের অপব্যাখ্যার কারণে বাংলাদেশে ধর্মীয় উগ্রবাদের বিস্তার ঘঠছে। ইসলামমিষ্টরা বিভিন্ন ধর্মীয় রাজনৈতিক সংগঠনের ব্যানারে সমাজে অপব্যাখা দিয়ে যুবসমাজকে বিভ্রান্ত করছে এসব যারা করছে এরা হলো জিহাদী, ওহাবী এবং মউদুদীবাদের অনুসারী। হাজার হাজার বছর ধরে বাংলাদেশের মানুষ সাম্প্রদায়িক সম্পৃতির মাঝে বসবাস করে আসলেও বিগত কয়েক বছরে বাংলাদেশে এসব ইসলামপন্থী দল গুলোর কারণে সাম্প্রদায়িক সম্পৃতি যেমন বিনষ্ট হছে গজিয়ে  উঠছে উগ্রবাদ এবং ধর্মের নামে সন্ত্রাস।

সেমিনারে আরো ব্কতব্য রাখেন  হিউমেনিষ্ট ফেডারেশনের জুলি ফার্নেট, লন্ডন স্কুল অব ইকনমিক্সের অধ্র্যাপক চেতন ভাট, কাউন্টার এক্সিটিমিজম প্রজেক্ট এর রবাটা ব্যানাজি, রয়েল ইন্সটিটিউট ফর ইন্টার ন্যামনাল রিলেশন এর টমাস রেনার্ড।

প্রশ্নউত্তর পর্বে অংশ নেন ইউকে ঘাতকদালাল নির্মুল কমিটির পুষ্পিতা গুপ্তা,  ন্যাদারল্যান্ডের দি হেগের এসটিড ফেরী,  বেলজিয়ামের এরিক ডামিনেস মেনগুইয়াম, কাওছার আহমদ আহমদিয়া মুসলিম জামাত নেদারল্যান্ড। পাবলু গলভেজ রলান্ড বাংলাদেশ ডেস্ক এটদ্য এশিয়ান পেসিফিক ডিভিশন এটদ্য ইউরোপীয়ান ্এক্সটারমেল এযাকমন সার্ভিস (ইইএএস), তানজেন মোরশেদ ইউনিভারসাইট লিবরে ডা ব্রাক্সেল প্রেসিডেন্ট বঙ্গবন্ধু ফাউনেডশন জার্মেনী, ইউনুস আলী খান, ডাক্তার বিদ্যুৎ বড়–য়া ডেনমার্ক, বিধান দেব ভাইস প্রেসিডেন্ট বেলজিয়াম আওয়ামীলীগ, ভাইস প্রেসিডেন্ড জামাল হোসেন মনির বেলজিয়াম আওয়ামীলীগ, আক্তারুজ্জামান পাবলিসিটি সেক্রেটারী, টেকনলোজজি সেক্রেটারী ইমরান আলী, যুবলীগ পাবলিসিটি সেক্রেটারী আরিফ উদ্দিন, আনার চৌধুরী, আবদুল হাই এবং বেলজিয়াম ডায়াসপারা সোসাইটির প্রতিনিধিবৃন্দ। বেলজিয়ামের  সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা এ ছাড়া কনফারেনেস যুক্তরাজ্য, জার্মানী, ফ্রান্স,ইতালী ও ইউরোপের অন্যান্য দেশ থেকে প্রবাসী বাংলাদেশী বিভিন্ন সামাজিক সাংসকৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। ব্রাসেলসে ঢাকা সলিডারিটি ফর পীস কমিটির কোঅর্ডিনেটর এমএম মোর্শেদের ধন্যবাদ বক্তব্যের মাধ্যমে সেমিনারের সমাপ্তি ঘটে।

 

 
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ